1. Hi Guest ঈদ মোবারক
    Pls Attention! Kazirhut Accepts Only Benglali (বাংলা) & English Language On this board. If u write something with other language, you will be direct banned!

    আপনার জন্য kazirhut.com এর বিশেষ উপহার :

    যেকোন সফটওয়্যারের ফুল ভার্সনের জন্য Software Request Center এ রিকোয়েস্ট করুন।

    Discover Your Ebook From Our Online Library E-Books | বাংলা ইবুক (Bengali Ebook)

Islamic মারা গেলে কি হবে?

Discussion in 'Role Of Islam' started by aarif, Jun 9, 2018. Replies: 1 | Views: 37

  1. aarif
    Offline

    aarif Senior Member Member

    Joined:
    Aug 29, 2012
    Messages:
    1,254
    Likes Received:
    202
    Gender:
    Male
    Reputation:
    390
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    গভীর রাত,মুয়াজ্জিন মাইকে ঘোষনা দিলো,সেহরীর সময় হয়েছে,সবাই সেহরী খেতে উঠুন। পাশ ফিরে উঠতে যাবো,তখনই খেলাম বড় ধরনের একটা ধাক্কা...
    আবছা আলোতে দেখলাম আমার মত দেখতে পাশে একজন শুয়ে আছে। এইটা আবার কে??
    ভয়ে ভয়ে তাকে নাড়া দিলাম,দেখলাম অচেতন কোন কথা বলছেনা,শরীর ঠান্ডা। কিছুক্ষণ পরেই মনে হলো ভদ্রলোক মারা গেছেন। চিন্তা করলাম এই লাশটা এখানে কেন???
    আবার দেখতে পুরোপুরি আমার মত??
    স্বপ্ন দেখছিনাতো?
    না সত্যিইতো।
    অনেকক্ষণ চিল্লাইয়া লোক জড়ো করার চেষ্টা করলাম,কিন্তু একি কেউ আসছেনা। একটু পর দেখলাম রুমের লাইট জালালো,পাশের রুমের একজন। ওই লাশটার কাছে এসে আমার নাম নিয়ে বললো ভাই সেহরি খাইবেন না?? সময় হইছে উঠেন।
    আমিতো পুরো অবাক,এইসব হচ্ছেটা কি??
    তার কাছে গিয়ে বললাম, তোমার কি মাথা খারাপ হইছে?? এই লাশ আমার রুমে আসলো কেমনে???
    এইটা কার লাশ??
    দেখি সে আমার কথায় কোন কর্ণপাত করলো না।
    সেও লাশটা ধরে অবাক হলো,এবং
    চিল্লাইয়া উঠলো,মুহুর্তেই আশপাশের সবাই জড়ো,হলো। লাশটা একটু দেখে সবাই ইন্নালিল্লাহ
    পড়তে লাগলো। এরপরতো আশেপাশে কান্নার রোল পড়ে গেছে।
    মুয়াজ্জিন যখন আমার বাবার নাম নিয়ে বললো অমুকের ছেলে অমুক ইন্তেকাল করছে,তখন মনে হইলো একি হচ্ছে আমার সাথে।
    সবাই আমাকে বাদ দিয়ে লাশটা নিয়েই ব্যস্ত হইয়া পরলো। কাউকেই বুঝাতে পারলাম না,আমি বেঁচে
    আছি। মনে হলো সবাই বুঝি পাগল হয়ে গেছে।
    তারপর লাশটা গোসল দেয়ার জন্য নিয়ে যাওয়া হলো।
    দুইজন বলাবলি করতে লাগলেন,আরে মৃত্যু কার যে কখন আসে বলা যায়না এইরকম জোয়ান মানুষ মারা যাবে কে ভাবছে,কাল বিকালেইতো আমাদের সাথে হাসিখুশী ভাবে কত কথা বললো।
    আমি লাশটার পাশাপাশি ছিলাম দাঁড়িয়ে ওদের কথা শুনছিলাম। গোসল দেয়ার পর দেখলাম মসজিদের
    কাছে একটা এম্বুলেন্সও আসলো। তারপর লাশটা এম্বুলেন্সে উঠানো হল। হঠাৎ বাবাকে দেখলাম, কয়েকজন তাকে ধরে আনছেন,বুঝাই যাচ্ছে, কি
    পরিমাণ কান্না করছেন। উনি ড্রাইভারের সাথে গিয়ে বসলেন। আমিও উঠে বসলাম লাশটার পাশেই, চিন্তা করলাম দেখি কি হয়।
    গ্রামে নিয়ে যাওয়া হবে সেখানেই দাফন করা হবে।
    এখনো কেমন জানি কিছু বুঝে উঠতে পারছিনা।
    বাসার কাছাকাছি এম্বুলেন্সটা আসতেই দেখলাম বাসার আশেপাশে প্রচুর মানুষ। কত পরিচিত মানুষ কান্নাকাটি করছে। গাড়ী থেকে নেমেই আম্মুর রুমে গেলাম,
    দেখা করতে,দেখি আম্মা ঘুমাচ্ছে,আর পাশে কয়েকজন
    মহিলা বসা। তাদের কথা দ্বারা বুঝলাম আম্মা কাঁদতে কাঁদতে দুইবার বেহুশ হয়ে গেছেন,এখন উনাকে ইঞ্জেকশন দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হইছে।
    লাশ দেখার সুযোগ করে দেয়া হলো সবাইকে।
    ছোট বোনটাকে যখন লাশ দেখানো হলো,
    সে কি আর বলার ভাষা আছে আমার....
    কিন্তু কাউকেই বুঝাতে পারলাম না,আমি মরিনি আমি বেঁচে আছি,এটা অন্য কারো লাশ। কেউ আমার কথা শুনতে পাচ্ছে না।
    কবরস্থানে গিয়ে দেখলাম দাদুর কবরের পাশেই একটা কবর খনন করা হয়েছে।
    তারপর স্কুল মাঠে জানাজার জন্য নিয়ে যাওয়া হলো,
    স্কুল মাঠে অনেক আত্মীয়স্বজনের ভীড় দেখলাম।
    বাবা হালকা একটু কথা বলার পর ইমাম সাব একটু বয়ান করে জানাজা পড়ালেন। তারপর নামায শেষ করে লাশ গোরস্থানের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
    আমি চিৎকার করে করে সবাইকে ডাকছিলাম,বলছিলাম
    আমাকে ওইখানে নিও না,দয়াকর কেউ আমাকে কবরে দিওনা। কিন্তু হায় আফসোস কেউ আমার কথা শুনলনা। তারপর সবাই মিলে লাশ দাফন করতে লাগলো।
    তখন আমার উপলব্ধি হল, আসলেই আমি আর এই জগতে নেই। আমার ইহজগতের আত্না পরলোকে পাড়ি দিয়েছে। আহা! জেনে শুনে কত গুনাহ করলাম।
    এখন কি যে হবে আমার! একটু পর দেখি ধীরেধীরে সবাই চলে যাচ্ছিলো। আর এক ঘোর অন্ধকার আমাকে আচ্ছাদিত করে নিলো। সব দিকেই অন্ধকার আর অন্ধকার!
    ভাবছিলাম ইস! যদি আরেকটা সুযোগ পেতাম, তাহলে কত যে আমল করতাম, সব সময় ইবাদত বন্দেগীতে মেতে থাকতাম।
    ইফতারের ১০-১৫মিনিট আগে দাফন শেষ হলো।
    সবাই যার যার মত চলে গেলো,কিন্তু বাবা বসে থাকলো, কিছুক্ষণ পর তাকেও জোর করে নিয়ে যাওয়া হলো।
    আমি পুরোপুরি নিজেকে ফিরে পেলাম।
    একা আমি একদমই একা। সব মায়া আমাকে ছিন্ন করে চলে গেছে।
    এই দেখি চারদিকে অন্ধকার আর অন্ধকার।
    অনেক ভয় লাগছে হয়তো একটু পরই মুনকির নাকির আসবে,আর প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইবে।
    ইয়া আল্লাহ এখন কি যে করি। পালানোর ও তো আর কোন রাস্তা নেই। সব দিকেই মাটি আর মাটি।

    রুমের লাইট অফ করে অন্ধকারে পুরো বিষয়টি চিন্তা করতে লাগলাম আর ভাবলাম এগুলাতো একদিন হবেই।
    এই কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন তো একদিন হতেই হবে সবাইকে।
    আল্লাহ আমাদের বেশী বেশী নেক আমল করার তৌফিক দান করুন.....আমিন।
     
    • Creative Creative x 1
  2. abdullah noman
    Offline

    abdullah noman Senior Member Member

    Joined:
    Sep 15, 2013
    Messages:
    1,360
    Likes Received:
    367
    Gender:
    Male
    Location:
    চট্টগ্রাম
    Reputation:
    386
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    সারাদিনে মৃত্যুর কথা একবারও মনে আসে না। বরং মনে করতে চাই না।
    কঠিন বাস্তবতা থেকে লুকোচুরি করতে করতেই সময় পার করে দেই।
    পিছনে দাঁড়িয়ে আজরাইল!
    যে কোন সময় থাবা দিবে!!
     

Pls Share This Page:

Users Viewing Thread (Users: 0, Guests: 0)