1. Hi Guest Pls Attention! Kazirhut Accepts Only Benglali (বাংলা) & English Language On this board. If u write something with other language, you will be direct banned!

    আপনার জন্য kazirhut.com এর বিশেষ উপহার :

    যেকোন সফটওয়্যারের ফুল ভার্সনের জন্য Software Request Center এ রিকোয়েস্ট করুন।

    Discover Your Ebook From Our Huge Collection E-Books | বাংলা ইবুক (Bengali Ebook)

Islamic জিন, জাদুটোনা ও বদনজর

Discussion in 'Role Of Islam' started by kaium, Oct 23, 2016. Replies: 54 | Views: 1109

  1. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]সাবা রাজ্যে

    আগুন থেকে তৈরি হওয়া জিনদের এসব বিশেষ ক্ষমতাকে কাজে লাগানোর জন্যই জাদুকররা জিনের সাহায্য নেয়। ধরুন আপনি একটি আপেল নিয়ে দেয়ালে র অন্যপাশে রেখে দিলেন। তাহলে দেয়ালের এপাশ থেকে আপনি আর আপেলের অস্তিত্ব টের পাবেন না। কিন্তু একটা আগুনের শিখা রাখলে আপনি দেয়ালে সেটার উত্তাপ অনুভব করবেন। কারণ আপেলের চেয়ে আগুনের বৈশিষ্ট্য আলাদা বলে সেটি দেয়ালের ভেতর দিয়েও নিজের অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

    সাবা অঞ্চলের রাণী বিলকিস যখন সুলাইমান (আঃ) এর দরবারের দিকে রওনা দেন, তখন সুলাইমান (আঃ) তাঁর সভাসদদের সাথে আলোচনা করছিলেন।

    "সুলায়মান বললেন, হে পরিষদবর্গ, তারা আত্নসমর্পণ করে আমার কাছে আসার পূর্বে কে বিলকীসের সিংহাসন আমাকে এনে দেবে? জনৈক দৈত্য-জিন বললো, আপনি আপনার স্থান থেকে উঠার পূর্বে আমি তা এনে দেবো এবং আমি একাজে শক্তিবান, বিশ্বস্ত।" (সূরা নামল ২৭:৩৮-৩৯)

    রাণী হিসেবে বিলকিসের অবশ্যই সে সময়কার দ্রুততম যানবাহন ছিলো। উপরের আয়াত থেকে বোঝা যায় জিনদের চলাফেরার গতি আর শক্তি এমন যে, বিলকিস একবার পথ অতিক্রম করার আগেই সেই জিন সেই দূরত্ব গিয়ে সিংহাসন বহন করে আবার ফিরেও আসতে পারবে।
    [/HIDE-THANKS]
     
  2. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]মানুষের সামর্থ্য আর জিনের সামর্থ্য

    শক্তির সমতা বজায় থাকলে নিরাপত্তা ও শান্তি বজায় থাকে। কেউ যখন নিজেকে অন্যদের চেয়ে শক্তিশালী বলে বুঝতে পারে, তখনই অবিচার ও অশান্তির সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আল্লাহ হুকুম দিয়েছেন ন্যায়বিচার ও শান্তির। জাদুটোনার ক্ষেত্রে যেহেতু মানুষের চেয়ে উচ্চতর শক্তির সাহায্য নিয়ে ক্ষতি ও বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করা হয়, তাই আল্লাহ এটিকে কুফরি বলে আখ্যা দিয়েছেন।
    [/HIDE-THANKS]
     
  3. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]হারুত-মারুত

    "তারা ঐ শাস্ত্রের অনুসরণ করল, যা সুলায়মানের রাজত্ব কালে শয়তানরা আবৃত্তি করত। সুলায়মান কুফর করেনি; শয়তানরাই কুফর করেছিল। তারা মানুষকে জাদুবিদ্যা এবং বাবেল শহরে হারুত ও মারুত দুই ফেরেশতার প্রতি যা অবতীর্ণ হয়েছিল, তা শিক্ষা দিত। তারা উভয়ই একথা না বলে কাউকে শিক্ষা দিত না যে, আমরা পরীক্ষার জন্য; কাজেই তুমি কাফের হয়ো না। অতঃপর তারা তাদের কাছ থেকে এমন জাদু শিখত, যদ্দ্বারা স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। তারা আল্লাহর আদেশ ছাড়া তদ্দ্বারা কারও অনিষ্ট করতে পারত না। যা তাদের ক্ষতি করে এবং উপকার না করে, তারা তাই শিখে। তারা ভালরূপে জানে যে, যে কেউ জাদু অবলম্বন করে, তার জন্য পরকালে কোন অংশ নেই। যার বিনিময়ে তারা আত্নবিক্রয় করেছে, তা খুবই মন্দ যদি তারা জানত।" (সূরা বাকারা ২:১০২)

    উপরের আয়াত থেকে আমরা জানতে পারলাম যে হারুত ও মারুত দুই ফেরেশতাকে ব্যাবিলন শহরে পাঠিয়ে তাদের দ্বারা জাদুবিদ্যা পৃথিবীতে আনা হয়।
    [/HIDE-THANKS]
     
  4. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]ভালো ও মন্দ দ্বারা পরীক্ষা

    "আমি তোমাদেরকে মন্দ ও ভাল দ্বারা পরীক্ষা করে থাকি।" (সূরা আম্বিয়া ২১:৩৫)

    আল্লাহ পৃথিবীতে ধনসম্পদ রেখেছেন। সাথে সাথে এও বলে দিয়েছেন এ সম্পদ কীভাবে আয় ও ব্যয় করতে হবে। হারাম উপায়ে তা করলে আখিরাতে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে। তাই সম্পদ একটি পরীক্ষা। কাউকে সম্পদ দিয়ে পরীক্ষা করা হয়, কাউকে না দিয়ে পরীক্ষা করা হয়। জাদুবিদ্যাও এমনই একটি পরীক্ষা। আল্লাহ আমাদের জানিয়ে দিয়েছেন যে এটিতে কোনো কল্যাণ নেই। এটি কুফরি। এটি চর্চা করলে অাখিরাতে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে। এ সবই আমাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারপরও মানুষ এটি শিখেছে। তারপর সংসারে ভাঙন ধরানোসহ নানারকম অনাচার ছাড়া আর কিছুই করেনি।

    মানবজাতিকে রক্ষা করবে বলে কেউ বন্দুক হাতে নিলো। তারপর বন্দুকের ক্ষমতায় দিশা হারিয়ে নিজেই খুনী হয়ে উঠলো। জাদুর ব্যাপারটাও এমন।
    [/HIDE-THANKS]
     
  5. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]দুজন ফেরেশতা কেন?

    ফেরেশতাগণ ভাল ও খারাপের প্রয়োজনের উর্ধ্বে। জাদুবিদ্যা দিয়ে তাদের কোনো লাভ নেই। তাঁরা এ থেকে উপকৃত বা এর দ্বারা বিপথগামী হতে পারবেন না। তাঁরা ছিলেন কেবল জাদুবিদ্যা পৃথিবীতে নিয়ে আসার জন্য একটি মাধ্যম।

    আবার নবী রাসূলের দ্বারা জাদুবিদ্যা পরিচিতি লাভ করলে আরেক সমস্যা হতো। নবী রাসূলগণ সর্বক্ষেত্রে অনুসরণীয়। তাঁরা জাদু দেখালে মানুষ এটা বলার সুযোগ পেয়ে যেতো যে জাদু নিশ্চয় কোনো ভাল জিনিস।

    হারুত মারুতকে নিয়ে প্রচলিত অনেক কিচ্ছা কাহিনী আছে। আমরা সেগুলো যাচাই না করে প্রচার করবো না।
    [/HIDE-THANKS]
     
  6. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]সুলাইমান ও জাদু

    সুলাইমান (আঃ) ও জাদুর কথা একই আয়াতে বলা হয়েছে। এর অর্থ এই না যে সুলাইমানের সময়ই পৃথিবীতে জাদু এসেছে। তাঁর অনেক আগের নবী সালিহ (আঃ) এর কাহিনীতেও জাদুর প্রসঙ্গ এসেছে। তার মানে হারুত মারুত সালিহ (আঃ) এরও আগে জাদুবিদ্যা এনেছিলেন। তাহলে সুলাইমান (আঃ) এর কথা উল্লেখের কারণ কী? এজন্য আমাদের আয়াতটির শানে নুযুল জানতে হবে।

    আল্লাহর দেওয়া মুজিযা স্বরূপ সুলাইমানের (আঃ) বিশেষ কিছু ক্ষমতা ছিলো। এসব ক্ষমতা জাদু নয়, মুজিযা। সুলাইমান পশুপাখির ভাষা বুঝতেন, বাতাস তাঁর আজ্ঞাধীন ছিলো। আর জিনেরা তাঁর আদেশে অনেক শ্রমসাধ্য কাজ করতো, যেমন ডুবুরি, ইমারতনির্মাতা ইত্যাদি।
    [/HIDE-THANKS]
     
  7. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]জিন শয়তানেরা জাদুটোনা করতে যেসব কিতাবাদি ব্যবহার করতো, সুলাইমান (আঃ) সেসব জোগাড় করিয়ে মাটিচাপা দেন। তাঁর মৃত্যুর পর জিন শয়তানেরা মানুষকে বলে যে ঐসব জাদুবিদ্যার কিতাব দ্বারাই সুলাইমান এত ক্ষমতাধর হয়েছিলেন (নাউযুবিল্লাহ)।

    কালক্রমে সেসব কিতাব ইয়াহুদী আলেমদের কাছে থেকে যায়। মুহাম্মাদ (সাঃ) যখন ওইসকল আলেমের কাছে ইসলামের দাওয়াত নিয়ে যান তখন তাদের স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় যে তাওরাতে মুহাম্মাদের(সাঃ) আগমনের ভবিষৎবাণী আছে। ইয়াহুদী আলেমরা বুঝতে পারে তিনিই সত্য নবী। কিন্তু তারা তা অস্বীকার করার স্বার্থে তাওরাত লুকিয়ে রেখে শয়তানদের সেসব কিতাব থেকে কুফরি কথা পড়তে থাকে। দাবি করে যে সুলাইমান (আঃ) এসব জাদু শিক্ষা দিতেন। তাদের দাবির মুখোশ উন্মোচন করে উক্ত আয়াত নাযিল হয়।
    [/HIDE-THANKS]
     
  8. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]শয়তানের ওয়াহী!

    ওয়াহী বা প্রত্যাদেশ হলো একটি গোপন যোগাযোগব্যবস্থা। বার্তাপ্রেরক আর বার্তাপ্রাপক ছাড়া কেউ বুঝতে পারে না যে বার্তা আদানপ্রদান হয়ে গেছে। আল্লাহ তাঁর অনেক সৃষ্টিকেই কখনো না কখনো ওয়াহীর মাধ্যমে আদেশ করেছেন।

    "আপনার পালনকর্তা মধু মক্ষিকাকে ওয়াহী করলেন, পর্বতগাত্রে, বৃক্ষ এবং উঁচু চালে গৃহ তৈরী কর।"(সূরা নাহল ১৬:৬৮)
    [/HIDE-THANKS]
     
  9. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]"সেদিন সে (পৃথিবী) তার বৃত্তান্ত বর্ণনা করবে। কারণ, আপনার পালনকর্তা তাকে ওয়াহী করবেন।" (সূরা যিলযাল ৯৯:৪-৫)

    শয়তানও তার সঙ্গী মানুষদের ওয়াহী পাঠায়।

    "নিশ্চয় শয়তানরা তাদের আওলিয়াদেরকে (বন্ধুদেরকে) ওয়াহী করে-যেন তারা তোমাদের সাথে তর্ক করে। যদি তোমরা তাদের আনুগত্য কর, তোমরাও মুশরিক হয়ে যাবে।" (সূরা আনআম ৬:১২১)
    [/HIDE-THANKS]
     
  10. kaium
    Offline

    kaium Ex-Staff

    Joined:
    Aug 17, 2012
    Messages:
    2,709
    Likes Received:
    1,359
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    126
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [HIDE-THANKS]শয়তানের কাছে গায়েবের জ্ঞান!

    জিন শয়তানেরা তাদের বন্ধুদের কাছে কী ওয়াহী পাঠায়? সহীহ বুখারির হাদীস থেকে প্রমাণিত যে, অতীতে শয়তানেরা উর্ধ্বজগতের নির্দিষ্ট স্থানে বসে আড়ি পাততো। ভবিষ্যতে ঘটিতব্য কিছুর ব্যাপারে ফেরেশতাদের দায়িত্ব সংক্রান্ত যেসব নির্দেশ নাযিল হতো, তার কিছু তারা শুনে ফেলতো। তারপর দ্রুত এসে গণক-জাদুকরদের তা জানাতো। গণকরা একটা সত্যির সাথে একশ মিথ্যা মিশিয়ে মানুষকে বলতো। তাদের কথার কিছু না কিছু সত্য হয়ে যায় দেখে মানুষ তাদের অদৃশ্যের জ্ঞানধারী ভেবে অনুসরণ করতে থাকে। এভাবে তাদের ব্রেইনওয়াশ করার পর এসব গণক ও জাদুকররা আল্লাহর কিতাবে নিজেদের কথা মিশ্রিত করে মানুষকে আস্তে আস্তে শিরক কুফরে লিপ্ত করে।

    মুহাম্মাদ (সাঃ) এর উপর ওয়াহী নাযিলের সময় জিন শয়তানদের আড়ি পাতার পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

    "আমরা আকাশ পর্যবেক্ষণ করছি, অতঃপর দেখতে পেয়েছি যে, কঠোর প্রহরী ও উল্কাপিন্ড দ্বারা আকাশ পরিপূর্ণ। আমরা আকাশের বিভিন্ন ঘাঁটিতে সংবাদ শ্রবণার্থে বসতাম। এখন কেউ সংবাদ শুনতে চাইলে সে জলন্ত উল্কাপিন্ড ওঁৎ পেতে থাকতে দেখে।" (সূরা জিন ৭২:৮-৯)
    [/HIDE-THANKS]
     

Pls Share This Page:

Users Viewing Thread (Users: 0, Guests: 0)