1. Dear Guest আপনার জন্য kazirhut.com এর বিশেষ উপহার :

    যেকোন সফটওয়্যারের ফুল ভার্সনের জন্য Software Request Center এ রিকোয়েস্ট করুন।

    Discover Your Ebook From Our Huge Collection E-Books

Health Tips নবজাতক সম্পর্কে যত অজানা

Discussion in 'Health 'n Fitness' started by Tazul Islam, May 17, 2017. Replies: 13 | Views: 111

  1. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    [​IMG]

    কাজীরহাটের মেম্বারদের মধ্যে কেউ কেউ হয়ত জানেন অথবা হয়ত অনেকে জানেন না , সম্প্রতি আমি বাবা হয়েছি। তাই নবজাতক সমন্ধে একটি পোস্ট না দিলেই নয় ।
    নেট ঘেটে যা পাচ্ছি তার নির্যাস এখানে শেয়ার করছি। নতুন কিছু সংযোজন অথবা বর্জন করতে হলে অবশ্যই জানাবেন।

    প্রথম পেইজ ইন্ডেক্স এর জন্য তেমন কিছু দিলাম না , আপনাদের যদি ভালো লাগে তবে পোস্টটি দীর্ঘায়িত হতে পারে।

    ধন্যবাদ
     
  2. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    নবজাতক কেন কাঁদে?

    -ডা. মো. আল-আমিন মৃধা

    [​IMG]
    নবজাতকের কান্না নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেইনবজাতক কান্নাকাটি করতে পারে। কান্না করলে ভয় পাবেন না। শিশুরা প্রয়োজনের কথা বলতে পারে না। তাদের প্রয়োজনের ও যোগাযোগের মাধ্যমই হলো কান্না। বেশি কান্নাকাটি করতে থাকলে অবশ্যই চিন্তার বিষয়। অতিরিক্ত কান্না থামানোও অনেক কষ্টসাধ্য ব্যাপার। খিদে লাগলে, ঘুম এলে, ব্যথা পেলে বা ব্যথা করলে, ভয় পেলে ইত্যাদি কারণে শিশু কাঁদতে পারে।

    জন্মের পরপরই শিশুর প্রথম কান্না কি ভালো?
    জন্মের পরপরই নবজাতকের চিৎকার করে কান্নার ব্যাপারটি স্বাভাবিক ও শিশুস্বাস্থ্যের জন্য ভালো। জন্মের পর নবজাতকের কান্না দেরি করে হলে ধরে নিতে হবে শিশুটি অক্সিজেন পাচ্ছে না। প্রসব-পরবর্তী এক মিনিটের মধ্যে শ্বাস না নিলে শিশুর মারাত্মক ক্ষতি হয়। এ সমস্যাকে বলা হয় বার্থ অ্যাসফিক্সিয়া।
     
  3. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    খিদে
    শিশুর কান্না শুনে প্রথমেই যে ধারণাটি করা হয় তা হলো শিশুর খিদে লেগেছে। সদ্যোজাত শিশুর কিছু লক্ষণ দেখে এটা বোঝা যায়। যেমন—অস্থির হয়, ঠোঁট কামড়ায়, গালে হাত লাগানো হলে তাদের মাথা হাতের দিকে ঘোরায় এবং নিজের হাত মুখে দেয়।

    ডায়াপার নোংরা হলে
    কিছু শিশু ডায়াপার নোংরা হলেই অস্বস্তি প্রকাশ করে ও কাঁদে। আবার কিছু শিশু এটা অনেকক্ষণ সহ্য করতে পারে। তবে ডায়াপার নোংরা হলেই তা তৎক্ষণাৎ পাল্টানো উচিত। অনেক সময় ডায়াপার ব্যবহারে র্যা শ হতে পারে। যার কারণেও বাচ্চা কান্না করতে পারে। তাই ডায়াপার যত কম ব্যবহার করা যায় ততই ভালো।

    ঘুমের জন্য
    যখন শিশু ক্লান্ত হয়, তখন ঘুমের প্রয়োজন হয়। আর তখনই শিশু কাঁদে, মাথা নাড়ে ও অস্থির হয়।

    মা-বাবার সান্নিধ্য চায়
    শিশুরা আদরপ্রিয়। তারা মা-বাবার মুখ দেখতে চায়, তাঁদের কণ্ঠ শুনতে চায়, তাঁদের হৃৎস্পন্দন শুনতে চায়। এমনকি তাঁদের শরীরের আলাদা গন্ধও তারা চিনতে পারে। শিশুর যখন মা-বাবার সান্নিধ্য প্রয়োজন হয়, তখনো কাঁদতে পারে।
     
  4. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    পেটের সমস্যা হলে
    প্রথম তিন মাস শিশুরা সাধারণত ইনফ্যান্টাইল কলিগে ভোগে। হঠাৎ করেই খাদ্যনালি কাজ শুরু করে বলে সাধারণত এমন ব্যথা হয় বলে অনেক সময় শিশুরা কেঁদে থাকে। শিশু যদি পেটের কোনো সমস্যায় ভোগে তাহলে অনেকক্ষণ ধরে কান্না করতে থাকে। যদি খাওয়ার পরপরই শিশু কাঁদে তাহলে বুঝতে হবে যে পেটব্যথার জন্য কাঁদছে। আর শিশুকে খাওয়ানোর পর ঢেকুর তোলালে পেটের গ্যাস অনেকাংশে ভালো হয়ে যায়।

    ঠান্ডা বা গরম লাগলে
    ন্যাপি পরিবর্তন করার সময় তার জামা খোলেন এবং ঠান্ডা ও ভেজা টিস্যু দিয়ে মোছেন, তখন সে ঠান্ডা অনুভব করে বলে কাঁদে। শিশুরা গরম ও ঠান্ডা উভয়ই অপছন্দ করে।
    এ ছাড়া হঠাৎ জোরে কোনো শব্দ শুনলে, ব্যথা পেলে বা ভয়ের কিছু দেখলে, নতুন পরিবেশে গেলে, নতুন মানুষ দেখলেও শিশু কান্না করতে পারে।

    কখন চিন্তার কারণ?
    যদি বাচ্চা কাঁদতেই থাকে, তবে প্রথমেই দেখে নিন বাচ্চার শরীরে জ্বর আছে কি না। তার কোনোভাবে ঠান্ডা লেগেছে কি না। অনেক সময় শিশুর কানে ব্যথা, মুখে ঘা, মস্তিষ্কে প্রদাহ হলে খুব কান্নাকাটি করে থাকে। তবে এসবের সঙ্গে জ্বর থাকবে। এমন হলে তৎক্ষণাৎ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

    -ডা. মো. আল-আমিন মৃধা
    সহযোগী অধ্যাপক, শিশু বিভাগ,
    শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল,
    ঢাকা।

     
  5. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    নবজাতক শিশুর যত্ন কীভাবে নেয়া যেতে পারে?

    [​IMG]
    নবজাতক শিশুর প্রয়োজন কোমল হাতের স্পর্শ যা একমাত্র মা-ই দিতে পারেন। নবজাতক শিশুর যত্ন সম্পর্কে আমাদের অনেক বেশি সচেতন হওয়া উচিত কেননা এসময়ে শিশুর যত্নের উপরে নির্ভর করে শিশু শারীরিকভাবে কতটা সুস্থ থাকবে। আসুন নবজাতক শিশুর যত্ন সম্পর্কে কিছু বিষয় জেনে নিই।

    শিশুর খাওয়াদাওয়া:
    ছয় মাস পর্যন্ত যেকোনো শিশুর খাবার শুধুই মায়ের বুকের দুধ। এ সময় বাইরের কোনো খাবার তো নয়ই, পানিও খাওয়ানোর প্রয়োজন পড়ে না শিশুকে। বুকের দুধ খাওয়ানো সম্ভব না হলে বাটিতে দুধ নিয়ে চামচ দিয়ে খাওয়ান। প্রতিবার ব্যবহারের আগে বাটি ও চামচ ফুটন্ত পানিতে ধুয়ে নিন। প্রতি দুই ঘণ্টা অন্তর শিশুকে দুধ খাওয়াতে পারেন। যদি শিশুটি ঘুমিয়ে পড়ে, জোর করে জাগিয়ে খাওয়াবেন না।

    শিশুর জামাকাপড়:
    সুতির হাল্কা রঙের পাতলা জামা শিশুর জন্য আরামদায়ক। এতে শিশুর ত্বকে ইনফেকশনের আশঙ্কা থাকে না। শিশুকে বোতামযুক্ত জামার বদলে ফিতাযুক্ত জামা পরান। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে শিশুর জামা অ্যান্টিসেপটিক লোশনে ডুবিয়ে রাখা খুব একটা জরুরি নয়। বরং প্রতিদিনের জামাকাপড় সাবান দিয়ে ধুয়ে ভালো করে রোদে শুকিয়ে নিন।
     
  6. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শিশুর গোসল:
    শিশুকে নিয়মিত গোসল করান। চিকিৎসক পরামর্শ না দিলে গোসল বন্ধ করবেন না। খুব শীত পড়লে বা অতিরিক্ত ভেজা আবহাওয়ায় অবশ্য গোসল না করিয়ে মাথা ধুইয়ে নরম কাপড় কুসুম গরম পানিতেভিজিয়ে গা মুছে দিতে পারেন। শিশুর জন্য বিশেষভাবে তৈরি কম ক্ষারযুক্ত সাবান, তেল, শ্যাম্পুই ব্যবহার করুন। সাবান কেনার সময় তার পিএইচ লেভেল চেক করে নিন। এই লেভেল সাতের নিচে থাকলেই ভালো। চাইলে শিশুকে তেল মাখাতে পারেন। তবে খুব গরমে বা অত্যন্ত আর্দ্র আবহাওয়ায় তেল মাখানো উচিত নয়।

    শিশুর শোয়া:
    মাথার গড়ন যাতে ঠিক হয়, এ কারণে ছোটদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি বালিশ ছাড়া অন্য বালিশ ব্যবহার করবেন না। সব সময় কোনো বিশেষ দিক করেই শোয়া স্বাস্থ্যকর নয়। ঘুমানো অবস্থায় শিশুকে মাঝেমধ্যে এপাশ-ওপাশ করুন। শিশুকে উপুড় করে শোয়াবেন না। নিঃশ্বাসের অসুবিধা হতে পারে।

    শিশুর ঘুম:
    ঘরে কথা বললে, কাজ করলে শিশুর ঘুমের ব্যাঘাত হবে—এমন ভাববেন না।স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ঘুমানোর অভ্যাস করালে পরবর্তীকালে ঘুমের সমস্যা কম হবে। ঘরে হালকা করে গানও চালিয়ে রাখতে পারেন। শিশুকে বিছানায় ঘুমানোর অভ্যাস করান, না হলে কোল থেকে নামিয়ে বিছানায় শোয়ালেই ঘুম ভেঙে যাবে। সব শিশুই প্রয়োজনমতো ঘুমিয়ে নেয়। তাই সে যতক্ষণ ঘুমায়, ঘুমাতে দিন। শরীর খারাপ থাকলে, বিশেষ করে শিশুর পেটে ব্যথা হলে ঘুমের সমস্যা হয়। তখন শিশুকে কোলে নিয়ে কাঁধে মাথা রেখে ঘুম পাড়ালে আরাম পায়।
     
  7. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শিশুকে কোলে নেওয়া:
    কোলে নেওয়ার সময় বা খাওয়ানোর সময় আপনার একটা হাত শিশুর পিঠের তলায় শিরদাঁড়া বরাবর রাখুন। শিশুর ঘাড় যত দিন না শক্ত হয়, তত দিন পর্যন্ত কোলে নেওয়ার সময় অবশ্যই ঘাড়ের তলায় হাত দিয়ে রাখুন। সাধারণত শিশুকে কোলে নেওয়ার সময় বুকের ওপর নিয়ে মাথাটা কাঁধে রাখা হয়। তবে ভালো হয়, শিশুকে কোমরে করে কোলে নিলে, চলতি কথায় যাকে ‘কাঁখে’ নেওয়া বলে। এতে মায়ের কোমরের দুই পাশ দিয়ে শিশুর দুটো পা থাকে। এতে শিশুর কোমর ও সংলগ্ন অংশের গড়নে বেশ কিছু উপকার পাওয়া যায়।

    শিশুর অসুস্থতার লক্ষণ:
    নবজাতকের শরীর অসুস্থ কি না, তা বোঝার জন্য কতগুলো সাধারণ লক্ষণ জেনে রাখুন। এ জাতীয় লক্ষণ দেখলেই বুঝতে পারবেন, সে কোনো অসুবিধার মধ্যে আছে কি না এবং সে অনুযায়ী বিশেষজ্ঞের পরামর্শও নিতে পারেন। খেয়াল করুন, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনার শিশুর ওজন ঠিকমতো বাড়ছে কি না। শিশুর প্রস্রাব নিয়মিত থাকা খুব জরুরি। নবজাতকের ক্ষেত্রে দিনে অন্তত ছয়বার প্রস্রাব হওয়া স্বাস্থ্যকর। পায়খানা অবশ্য দিনে বেশ কয়েকবার হতে পারে। শিশুকে দেখে যদি সুস্থ না মনে হয়, টোকা মারলে যদি না কাঁদে, ঝিমিয়ে থাকে, হাতের চেটো আর পায়ের তলা হলুদ হয়ে যায় বা অল্প খেয়েই ঘুমিয়ে পড়ে, সে ক্ষেত্রে শিশু অসুস্থ বলে ধরে নেওয়া যায়। পেটে ব্যথা হলে অনেক শিশুই কী করবে, বুঝতে না পেরে বারবার খেতে চায়। খিদে না থাকায় অল্প খেয়েই শুয়ে পড়ে। শুলেই আবার পেটে ব্যথা শুরু হয়। এ রকম লক্ষণ দেখলেই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

    শিশুর সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি:
    শিশুর সঙ্গে মায়ের সম্পর্ক তৈরির সহজ উপায় হলো তার সঙ্গে সময় কাটানো। দিনের যতটা সময় পারেন আপনার শিশুর সঙ্গে কাটান। শিশুকে খাওয়ানো, ঘুম পাড়ানো, গোসল করানো যতটা সম্ভব নিজে করুন। শিশুর সঙ্গে মা ও পরিবারের অন্যরা যত মিশবেন, ততই শিশু হাসিখুশি ও মিশুক হবে। এ রকম পরিবেশে অনেক শিশুরই প্রাথমিক পর্যায়ে বৃদ্ধি ভালো হয়।
     
  8. Tazul Islam
    Offline

    Tazul Islam Kazirhut Lover Member

    Joined:
    Apr 20, 2016
    Messages:
    23,675
    Likes Received:
    426
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    130
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    বিশেষ সতর্কতা:

    শিশুকে ধরার আগে সব সময় হাত ধুয়ে নিন। এ সময় ভালো মানের সাবান ব্যবহার করুন। নবজাতককে কোলে নেওয়ার সময় মায়ের হাতে আংটি বা চুড়ি না থাকলেই ভালো। কারণ, এগুলোয় জমে থাকা ময়লা থেকে শিশুর শরীরে ইনফেকশনের আশঙ্কা থাকে; কেটেও যেতে পারে। শিশুর ঘর, আসবাব, বিছানার চাদর, বালিশের ওয়াড়সহ অন্য সামগ্রী নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

    কর্মজীবী মায়েদের জন্য:
    কর্মজীবী মায়েরা যত দিন সম্ভব, তত দিন মাতৃত্বকালীন ছুটি নেওয়ার চেষ্টা করুন। প্রতিদিন বের হওয়ার আগে এবং বাড়ি ফিরে নিয়ম করে অবশ্যই ওকে বুকের দুধ খাওয়ান। এতে শিশু প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাবে। বাইরে বের হওয়ার আগে বুকের দুধ এক্সপ্রেস করে একটা পরিষ্কার বাটিতে রেখে যেতে পারেন। আপনার অনুপস্থিতিতে এই দুধ আপনার শিশু অনায়াসে খেতে পারবে। স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ছয় ঘণ্টা আর রেফ্রিজারেটরে রাখলে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত এই দুধ ব্যবহারযোগ্য। ফোটানোরও কোনো প্রয়োজন নেই। বিকল্প হিসেবে প্রয়োজনে শিশুকে কৌটার দুধ খাওয়াতে পারেন। তবে ফিডারে করে নয়, অবশ্যই বাটি-চামচ ব্যবহার করে। শিশুকে বুকের দুধ পান করানো নিয়ে কোনো রকম সংশয় রাখবেন না। বুকের দুধ শিশুর শরীরে প্রয়োজনীয় ইমিউনিটি গড়ে তোলে। পাশাপাশি মায়েরাও বেশ কিছু উপকার পান। গর্ভাবস্থায় মহিলাদের শরীরে যে ফ্যাট জমে, বুকের দুধ পান করানোর সময় তা অনেকটাই বেরিয়ে যায়। ফলে পোস্ট প্রেগনেন্সি স্টেজে মহিলাদের পক্ষে শরীর ঠিক রাখাও বেশ সহজ হয়। মুটিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা কমে।
     
    Zahir likes this.
  9. Zahir
    Offline

    Zahir Administrator Admin

    Joined:
    Jul 30, 2012
    Messages:
    18,652
    Likes Received:
    5,521
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka, Bangladesh
    Reputation:
    917
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শিশুদের নিয়ে চমৎকার সব তথ্য শেয়ার করার জন্য তাজুল মামাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।
    গর্বিত পিতার জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইল।
     
    Tazul Islam and captcha like this.
  10. মরুভূমির জলদস্যু
    Offline

    মরুভূমির জলদস্যু Writer Support Team

    Joined:
    Dec 22, 2012
    Messages:
    4,989
    Likes Received:
    1,912
    Gender:
    Male
    Location:
    Dhaka
    Reputation:
    440
    Country:
    Bangladesh Bangladesh
    শুভকামনা ও শুভেচ্ছা রইলো।
     
    Tazul Islam, captcha and Zahir like this.

Pls Share This Page:

Users Viewing Thread (Users: 0, Guests: 0)